ভারত

সাইন্স সিটি কলকাতা

সাইন্স সিটি

সাইন্স সিটি কলকাতা মূলত একটি বিজ্ঞান সংগ্রহশালা ও বিজ্ঞানকেন্দ্রিক বিনোদন পার্ক। কলকাতাবাসীর কাছে বিজ্ঞানকে জনপ্রিয় করে তোলার উদ্দেশ্যে এটি তৈরি করা হয়। এটি নতুন নতুন বিজ্ঞান শিক্ষার ব্যবস্থা করে শহরের প্রধান দর্শনীয় স্থানগুলির মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে।

সাইন্স সিটি কোথায় অবস্থিত

সাইন্স সিটি ভারতের কলকাতা শহরের জে.বি.এস.হালডান এভিন্যিউতে অবস্থিত।

সাইন্স সিটি

সায়্যন্স সিটি কলকাতার এক অন্যতম স্থাপনা। এটি ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। নানা রকমের বৈজ্ঞানিক প্রয়োগ এবং প্রযুক্তির প্রদর্শন এখানে করা হয়েছে। এটি শুধুমাত্র একটি চিত্তবিনোদনমূলক স্থানই নয় বরং আপনি এই জায়গা থেকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিদ্যার উপর প্রচুর জ্ঞানার্জনও করতে পারেন।

সকল বয়সের মানুষের কাছে সায়্যন্স সিটি এক উপভোগ্য স্থান। যারা বিজ্ঞান সম্পর্কে আরও জানতে চান তাদের জন্য এটি একটি সর্বোত্তম পর্যটন গন্তব্যস্থল। তাছাড়া এখানে আপনি আপনার শিশুদের বন্য পাখি এবং কৃত্রিম ডাইনোসরও দেখাতে পারেন।

সায়েন্স সিটি দুই ভাগে বিভক্ত। একটি সায়েন্স সেন্টার , অন্যটি কনভেনশন সেন্টার। মজার ও শিক্ষামূলক প্রদর্শনী ও নিদর্শন রাখা হয়েছে বিজ্ঞান কেন্দ্রে। রোমাঞ্চে ভরা সায়েন্স সিটিতে আছে- স্পেস এক্সিবিউশন, ডায়নামোশেন, আর্থ এক্সপ্লোরেশন, মেরিটাইম সেন্টার ও সায়েন্স পার্ক। এসবের প্রতিটি বিভাগে আবার বিভিন্ন বিজ্ঞান চিত্র প্রদর্শনী, থ্রিডি প্রদর্শনী ও চলচ্চিত্র অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

ক্যাবলকার, মোনো সাইকেল, ক্যাটার পিলার, গ্যাভিসিটি কশটার, রোড ট্রেনে করে ঘুরে সায়েন্স সিটি দেখার সুযোগ আছে। এখানে একটি বিশাল পিকনিক স্থান আছে। যেখানে বাড়ি থেকে খাবার এনে আনন্দ করে খাওয়া যায়। এখানে আরো আছে ১ হাজারের বেশি গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা।

যাবার উপায়

সায়েন্স সিটি যেতে হলে আপনাকে প্রথমেই আসতে হবে ভারতের কলকাতা শহরে। কলকাতা শহরের যেকোনো জায়গা থেকে ট্যাক্সি করে চলে যেতে পারেন সায়েন্স সিটি। হাওড়া রেলওয়ে স্টেশন থেকে ১১৭ নং জাতীয় সড়ক হয়ে সায়েন্স সিটিতে পৌঁছাতে প্রায় আধ ঘন্টা সময় লাগে।

সময় সূচি

সায়েন্স সিটি সপ্তাহের প্রতিদিনই সকাল ৯ টা থেকে রাত ৭ টা পর্যন্ত খোলা থাকে। কেবল মাত্র হোলির দিন বন্ধ থাকে।

টিকিটের মূল

সায়েন্স সিটি তে প্রবেশ মূল্য জন প্রতি ৪০ টাকা। ২০ বা তার বেশি লোকের গ্রূপ হলে প্রবেশ মূল্য প্রতি জনের ৩০ টাকা। এখানে সব দেশের মানুষের জন্যই টিকেটের মূল্য সমান। এছাড়া ভিতরের কিছু কিছু রাইডের জন্য আলাদা করে টিকেট কাটা লাগে।

গ্রাভিটি কোস্টার ৩০ টাকা, রোড ট্রেন ১৫ টাকা, স্পেস থিয়েটার ৬০ টাকা, টাইম মেশিন ২০ টাকা, মোনো সাইকেল ১৫ টাকা। ত্রিমাত্রিক প্রদর্শনী ৩০ টাকা, রোপওয়ে ৪০ টাকা+ পরিষেবা কর। সায়েন্স অন স্ফিয়ার ২০ টাকা, প্যানোরমা শো অন হিউম্যান ইভোল্যুশন ৬০ টাকা, ইভোল্যুশন অব লাইফ- ডার্ক রাইড ৪০ টাকা। প্যানোরমা শো অন হিউম্যান ইভোল্যুশন+ইভোল্যুশন অব লাইফ- ডার্ক রাইড (কম্বো টিকিট) ৮০ টাকা।

4.5 2 ভোট
রেটিং

লেখক

আমি একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, ট্রাভেল ফটোগ্রাফার। তথ্য-প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করলেও ঘুরে বেড়াতে ভীষণ ভালোবাসি। নিজের ভ্রমণ অভিজ্ঞতা এবং জ্ঞান কে এই ওয়েব সাইটে নিয়মিত শেয়ার করার চেষ্টা করি।

1 মন্তব্য
Inline Feedbacks
সব মন্তব্য দেখুন

''

1
0
আমরা আপনার অভিমত আশা করি, দয়াকরে মন্তব্য করুনx